Categories
খাদ্য ও পুষ্টি

রক্তের কোলেস্টেরলের আধিক্কে খাদ্য নির্দেশিকা

খাদ্য প্রচুর খাওয়া যাবে সীমিত পরিমানে খাওয়া যাবে বর্জণীয়
শস্য ও শর্করা চাল, গম,আলু, ময়দা, লাল আটা, ভুট্টা, যব সাদা ময়দা, সাদা আটা, আতপ চাল, মিষ্টি বিস্কুট চিনি-ডিম, ঘি দিয়ে তৈরি খাবার (যথা-হালুয়া, কেক, পুডিং)
মাছ সব ধরনের সামুদ্রিক মাছ (রুপচাঁদা, রিঠা, হেকিং,কড, সার্ডিন, টুনা, স্যামন) বড় মাছের মাথা, মাছের ডিম, পাঙ্গাসের পাটি, চিংড়ি মাছ
মাংস মোরগ ও মুরগির মাংস, বাচ্চা গরুর চর্বিহীন মাংস, পাখির মাংস সম্পুর্ণ মেদযুক্ত হাঁস, ভেড়া, গরু, খাসি ইত্যাদির মাংস মুরগির চামড়া, হাঁসের চামড়া, বিভিন্ন প্রানির কলিজা, বৃক্ক ও মগজ
ডিম ও দুগ্ধ ডিমের সাদা অংশ, সরতোলা দুধ বা ঘোল, ননীহীন দুধের পুনির, মিষ্টি ছাড়া দুধের দই স্বল্প সরযুক্ত দুধ, সপ্তাহে সর্বাধিক দুটি ডিম ডিমের কুসুম,পূর্ণ ননীযুক্ত দুধ, ক্ষীর, সরযুক্ত পনির, আইসক্রীম, পেস্ট্রি, পুডিং
তেল ও চর্বি সয়াবিন তেল সর্ষের তেল, সূর্যমুখী তেল, বাদাম তেল, মার্জারিন, কর্ন তেল, স্বল্প তেলযুক্ত চাটনি, চীনাবাদাম ও অন্যান্য বাদাম মাখন, ঘি, সকল প্রকার প্রাণিজ চর্বি, নারিকেল তেল, পাম অয়েল, ডালডা ইত্যাদি
শাক ও সবজি সব ধরনের ভাজা বা হিমায়িত শাক ও সবজি অতিরিক্ত তেলে ভাজা শাক ও সবজি ঘি কিংবা ডালডা ভাজা সবজি
ফল সব ধরনের তাজা মৌসুমি ফল, শুকনা ফলও লেবু জাতীয় ফল, যথা- জাম্বুরা, আমড়া, কালোজাম,কামরাঙ্গা, আমলকি ও ডাবের পানি মিষ্টি জাতীয় ফল, যেমন- আম, কাঁঠাল, আনারস, আপেল, কমলা, তরমুজ, আতা, নারিকেল ও পাকা কলা মিষ্টি ফলের রস
ডাল ও বীচি মশুর, মুগ, বুট, কাঁচা ছোলা, সিমের বীচি, মটরশুঁটি
পানীয় চা, খনিজ পানি, চিনিহীন হালকা পানীয়, সবজির সুপ কফি, চিনিযুক্ত হালকাপানীয়, মাংসের সুপ, স্বল্প এলকোহলযুক্ত বিয়ার বেশি এলকোহলযুক্ত বিয়ার, পুর্ণ চর্বি যুক্ত চকলেট পানীয়, ক্রীম সুপ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *