Categories
স্বাস্থ্য পরামর্শ

স্কুলগামী শিশুদের অভিবাবকদের বিশেষ সতর্কতার পরামর্শ

করোনা সংক্রমণের হার বর্তমানে নিম্নমুখী হলেও স্কুলগামী শিশুদের নিয়ে বিশেষ সতর্কতার আহবান জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। 

চাইল্ড হেলথ রিসার্চ ফাউন্ডেশনের গবেষণা বলছে, করোনা ভাইরাসের ডেল্টা ধরনে শিশুদের আক্রান্ত হবার হার ও মৃত্যুহার দুটোই বেশি। যা প্রায় ১২ থেকে ১৪ শতাংশ। 

তাই স্কুলে ও স্কুলের বাইরে শিশুদের স্বাস্থ্যবিধি মানার ক্ষেত্রে স্কুল কর্তৃপক্ষ ও অভিভাবক দুই পক্ষেরই নজরদারির কথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা। 

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সব শেষ পরিসংখ্যান বলছে, ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে করোনা সংক্রমণ শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত ৭৪ জন শিশু মারা গেছে। 

যাদের বয়স নবজাতক থেকে শুরু করে ১০ বছর পর্যন্ত। আর ১১ থেকে ২০ বছর বয়সীদের মধ্যে মারা গেছে ১৭৫ জন। 

চাইল্ড হেলথ রিসার্চ ফাউন্ডেশনের গবেষণা বলছে, দেশে ডেল্টা ধরন শনাক্তের পর শিশুদের আক্রান্তের হার বাড়তে শুরু করে। গেল জুলাই-আগস্ট মাসে এই হার ছিলো সবচেয়ে বেশি।

করোনা সংক্রমণ এখন কিছুটা নিম্নমুখী। তবে স্কুল খুলে দেয়ায় শিশুদের সংক্রমণ পরিস্থিতির ওপর নজর রাখার কথা বলছেন বিশেষজ্ঞরা। 

বিশেষ করে শিশুদের স্কুলে যাওয়া আসার পথে অভিভাবকের সতর্কতা আর স্কুল চলার সময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মানার কথা বলছেন তারা।  

টিকা ছাড়া করোনা প্রতিরোধ অসম্ভব। কিন্তু শিশুদের টিকার আওতায় আনার বিষয়ে এখনও যেহেতু সিদ্ধান্ত নেই। তাই, কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনই স্কুলগামী শিশুদের করোনা থেকে রক্ষার একমাত্র উপায় বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *