Categories
রোগ ব্যাধি

কিডনিতে পাথর

কিডনি, মূত্রথলি বা মূত্রনালির পাথর অনেকেরই হয়। এ নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। পাথর ধরা পড়লে দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন। কেননা এ সমস্যা চিকিৎসা নিলে সহজেই সেরে যায়।
লক্ষণ: কিডনি, মূত্রথলি বা মূত্রনালিতে পাথর হলে সাধারণত কোমরে ব্যথা হয়ে থাকে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে তলপেট বা ঊরুর ভেতরের দিকেও ব্যথা ছড়িয়ে পড়তে পারে। এই ব্যথা সাধারণত বেশ তীব্র এবং ক্ষণে ক্ষণে ওঠে। এ ছাড়া পাথরের কারণে প্রস্রাবের সঙ্গে রক্ত যেতে পারে। প্রস্রাবে সংক্রমণও হতে পারে।
চিকিৎসা: অধিকাংশ ক্ষেত্রে কাটাছেঁড়া না করেই কিডনির পাথরের চিকিৎসা সম্ভব। রোগীকে প্রচুর পানি পান করিয়ে এবং ব্যায়ামের মাধ্যমে কিছু পাথর শরীর থেকে বের করা সম্ভব। এ ছাড়া অন্যান্য পাথর আধুনিক পদ্ধতিতে বিচূর্ণ করা হয়। তারপর তা প্রস্রাবের সঙ্গে বেরিয়ে আসে। খুব কম ক্ষেত্রেই আজকাল অস্ত্রোপচারের প্রয়োজন হয়।
প্রতিরোধে করণীয়: প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন ‘এ’ ও ভিটামিন ‘সি’ সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে। পর্যাপ্ত পানি পান করুন। প্রস্রাবে সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে হলে দীর্ঘক্ষণ প্রস্রাব আটকে রাখা থেকে বিরত থাকুন এবং পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখুন। অ্যান্টাসিডজাতীয় ওষুধ অতিমাত্রায় সেবন করা ঠিক নয়। বারবার কিডনিতে পাথর হলে রক্তে ক্যালসিয়ামের মাত্রা দেখে নেওয়া ভালো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *